ডিজিটাল মার্কেটিং কি? কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয় করবেন?

আধুনিক বিশ্বে মানুষের ব্যবসাগুলো আজ শুধু একটি শহর বা কোন দেশের মধ্যেই শুধু সীমাবদ্ধ নেই। ব্যক্তিগত উদ্যোগে হলেও মানুষ আজ তা বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে সক্ষম হচ্ছে। আর এর মূল কারণ কি আপনার জানা আছে? জানা না থাকার কথা না। কেননা আপনি বাস করছেন একবিংশ শতাব্দীতে।

একবিংশ শতাব্দিতে এই ব্যবসার প্রচার ঘটানোর সবচেয়ে কার্যকরী মাধ্যম হচ্ছে মার্কেটিং বা প্রচার প্রচারণা। আর সেই প্রচার প্রচারণাও অনেকাংশে উন্নত হয়েছে। যার কারণেই তো এত বিপ্লব আজ। যাই হোক আজ আমরা আলোচনা করব ডিজিটাল মার্কেটিং সমন্ধে।

ডিজিটাল মার্কেটিং কি, কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং শুরু করবেন সে সম্পর্কে এক বিস্তর আলাপ চারিতা হবে আশা করি। চলুন তবে দেরি না করে এখনই শুরু করা যাক আজকের টপিক। 

ডিজিটাল মার্কেটিং কি? 

ডিজিটাল মার্কেটিং কথাটি মূলত দুটি শব্দের সমন্বয়ে গঠিত। ডিজিটাল এবং মার্কেটিং শব্দ দুটি মূলত শব্দটি গঠন করে। তো এখানে প্রথম শব্দটি হচ্ছে ডিজিটাল। তো ডিজিটাল কথাটির অর্থ আমাদের সবারই জানা। ডিজিটাল অর্থ হলো আধুনিক। অর্থাৎ আদীম কোনো পদ্ধতির ব্যতিরেকে নতুন পদ্ধতির ব্যবহার। অপরদিকে মার্কেটিং শব্দটির অর্থ হলো প্রচার প্রচারণা। অর্থাৎ কোনো কিছু মানুষকে জানানো। 

একসাথে করলে আমরা যে সংজ্ঞাটি পাব তা হলো আধুনিক পদ্ধতি অবলম্বন করে মার্কেটিং বা প্রচার প্রচারণা করাকে মূলত ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়ে থাকে। আধুনিক পদ্ধতির মধ্যে এখানে আমরা উল্লেখ করতে পারি বিভিন্ন সোশ্যাল মিডীয়ার ব্যবহার, সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে মার্কেটিং ইত্যাদি। 

তো মোটের উপর বলা যায়া আমাদের কাছে বর্তমানে যে সব মাধ্যম রয়েছে তা ব্যবহার করে মার্কেটিং করাকেই মূলত ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়। আশা করি সংজ্ঞা দ্বারা আপনার প্রাথমিক ধারণাটুকু পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে। 

বিভিন্ন প্রকার ডিজিটাল মার্কেটিংঃ 

উপরের পয়েন্ট টুকুতে আমরা জেনেছি যে ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রাথমিক ধারণা। এ পর্যায়ে আমরা বিভিন্ন প্রকার ডিজিটাল মার্কেটিং সমন্ধে জানব। আমরা আগেই বলেছি ডিজিটাল মার্কেটিং বিভিন্ন পদ্ধতিতে করা হয়ে থাকে। আর সেই ডিজিটাল মার্কেটিংএর পদ্ধতির উপর ভিত্তি করেই আমরা এই প্রকার গুলো জানব। 

সোশ্যাল মিডীয়া মার্কেটিংঃ 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর অনেক বড় একটা অংশ রয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এ। আচ্ছা আপনাকে একটা প্রশ্ন করা যাক। বলুন তো মার্কেটিং এর জন্য মূলত কি প্রয়োজন বা এর মূল প্রয়োজন টা কি? 

এক কথায় হয়তো উত্তর দিবেন লোকের কাছে পৌছানো। আচ্ছা তাই যদি হয় তা হলে একটু সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে তাকানো যাক। ফেসবুকের বর্তমানে সক্রিয় ইউজার সংখ্যা প্রায় ৫ বিলিয়ন এর কাছাকাছি। আবার আপনি ইন্সটাগ্রাম এর দিকে তাকালে দেখতে পারবেন ১ কি দেড় বিলিয়ন এর মতো সক্রিয় ব্যবহারকারী। অপরদিকে টুইটার, স্ন্যাপ চ্যাট বা অপর কোনো সোশ্যাল মিডিয়া এর দিকে তাকালেও আপনি এমনটিই দেখতে পারবেন। তাহলে কি বলা যায় না সোশ্যাল মিডিয়া এর মাধ্যমেই আমি অনেক বেশী সংখ্যক মানুষের কাছে পৌছাতে পারব নর্মাল কোনো দেশ বা মহাদেশ এর চেয়ে? 

হ্যাঁ, সোশ্যাল মিডিয়া এর মাধ্যমে ৫ বিলিয়ন এর মতো লোকের সাথে খুব সহজেই কানেক্টেড হয়ে যাওয়া যায়। আর একারণেই মার্কেটিং বা ডিজিটাল মার্কেটিং এর অনেকাংশই এই সোশ্যাল মিডীয়া মার্কেটিং এর সাথে জড়ীত। আশা করি বুঝতে পেরেছেন। 

ইমেইল মার্কেটিংঃ 

মার্কেটিং এর অপর একটি ভালো উদাহরণ হলো ইমেইল মার্কেটিং। মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে এক অনন্য নজির হলো ইমেইল মার্কেটিং। বর্তমানের অনেক প্রতিষ্ঠানই এই মার্কেটিং এর সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। তাদের ব্যবসা বাড়ানোর জন্য হোক বা অন্য কোনো কারণে ইমেইল মার্কেটিং অন্যতম ভূমিকা রেখে চলেছে। 

একটি পরিসংখ্যানে দেখা যায় যে পৃথিবীর প্রায় ৩৪% মানুষ ইমেইল ব্যবহার করে থাকে। আর এদের মধ্যে প্রায় ৯০% মানুষ তাদের ইমেইল ডেইলী একবার হলেও চেক করে থাকে। দুই তিনবার এর কথা পরে। তো এখান থেকে একটি বিষয় কিন্তু বুঝে নেয়া যায়। 

আর সে বিষয়টি হলো আপনি যদি ইমেইল মার্কেটিং করেন তবে খুব ভালোভাবে আপনার গ্রাহক পেয়ে যাবেন নিজের ব্যবসার জন্য। 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর এক অনন্য দৃষ্টান্তও এটি।

এসইও( সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন)-

 ডিজিটাল মার্কেটিং এর আরেকটি ক্ষেত্র হলো এসইও। এসইও এর পূর্ণরূপ মূলত সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন। এসইও কি তা নিয়ে আপনার একটু দ্বিধা হয়তো বা থাকতে পারে তা একটু দূরীভূত করার চেষ্টা করব। 

এসইও মূলত সার্চ ইঞ্জিনের নিয়ম মেনে কোনো কন্টেন্ট বা ওয়েব পেজকে সার্পে এ সবার শুরুতে নিয়ে আসাকে বোঝানো হয়। মূল কথা হলো সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেজে একটি কন্টেন্ট এর র‍্যাংক উন্নতির জন্য এসইও করা হয়ে থাকে। এসইও যারা করে থাকেন তাদেরকে এসইও মার্কেটার বলা হয়ে থাকে। 

বিখ্যাত কোম্পানিগুলো তাদের অনলাইন উপস্থিতির জন্য মূলত ওয়েবসাইট ব্যবহার করে থাকে। আর তাদের এই ওয়েবসাইট যে রয়েছে তা যেন সবাই জানতে পারে তাই তারা একে সবার শুরতে আনতে চায়। তাই তারা এসইও করিয়ে নেয়। 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সেরা একটি ভাগ হলো সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন। 

কন্টেন্ট মার্কেটিং- 

কন্টেন্ট মার্কেটিং মূলত করা হয়ে থাকে সচেতনার অনেক গল্প শুনিয়ে বা বিভিন্ন তথ্য দেয়ার মাধ্যমে। কন্টেন্ট মার্কেটিং এর এই গল্প বলা বা তথ্য দেয়ার মূল কারণটা থাকে এক সময় সেই দর্শকে কাস্টমার কে পরিণত করা। 

এখানে কন্টেন্ট বলতে আমরা মূল বুঝিয়ে থাকি বিভিন্ন ভিডিও, ফেসবুক পোস্ট বা ব্লগ পোস্ট সমূহকে। কন্টেন্ট মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে শুরুর দিকে কোনো ধরনের মার্কেটিং এর কথা বার্তা চলবে না অন্যান্য মার্কেটিং এর মতো। শুরুতে আপনাকে বিভিন্ন পোস্টের মাধ্যমে দর্শক এর দৃষ্টি আকর্ষণ করতে হবে। 

আপনি যখন এক পর্যায়ে একটি ভালো অ্যামাউন্ট এর দর্শক পেয়ে যাবেন তখন খুব আস্তে ধীরে আপনাকে অ্যাড বা মার্কেটিং এর কার্যকলাপ শুরু করতে হবে। কেননা একবারেই শুরু করলে হঠাত করেই দর্শক উধাও হয়ে যেতে পারে। এ বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। 

 সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং -

আমরা যেই সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে ডেইলী নানা ধরনের তথ্য নেয়ার জন্য যেয়ে থাকি। ঠিক সেখানেও কিন্তু মার্কেটিং এর একটা বড় অংশ রয়েছে। আর এই মার্কেটিংকেই মূলত সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং বলা হয়ে থাকে। 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিংকে কিছু সময় পিপিসি ও বলা হয়ে থাকে। সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং বা এসইএম মূলত করা হয় গুগলকে টাকা দেয়ার মাধ্যমে। প্রসেস্টা আপনাকে একটু বুঝিয়ে দিচ্ছি।

 ধরুন আপনার একটি ওয়েব পেজ রয়েছে। এক্ষেত্রে আপনি চাচ্ছেন যে অর্গানিকভাবে না করে গুগল এর মাধ্যমে সরাসরি র‍্যাংক আপ করবেন। এর জন্য আপনাকে যা করতে হবে তা হলো গুগলকে টাকা দিতে হবে। গুগলকে টাকা দেয়ার মাধ্যমে আপনি র‍্যাংক আপ করাতে পারবেন। 

গুগলকে টাকা দিয়ে সেই র‍্যাংক বাড়ানোর প্রক্রিয়াকে মূলত সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং বা এসইএম বলা হয়ে থাকে। 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে এসইএম অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ যদি একটি সাইটকে ভালো ভাবে র‍্যাংক আপ করাতে হয়। 

কেন ডিজিটাল মার্কেটিং করবেন? 

প্রশ্ন এখন আপনি আমাকে করতেই পারেন যে আপনি কেন ডিজিটাল মার্কেটিং করবেন। সেক্ষেত্র বলতে চাই একটু বাইরের বিশ্বের দিকে তাকান। 

গোটা বিশ্বের মার্কেটিং সেক্টর এখন এই ডিজিটাল মার্কেটিং এর উপরেই নির্ভরশীল। তাহলে ভাবুন আপনি যদি একজন ডিজিটাল মার্কেটার হতে পারেন তাহলে আপনার কাজের চাহুদা কত বেশি। বিশ্বের বুকে এখন লাখো কোম্পানি এই ডিজিটাল মার্কেটারদের উচ্চ দামে নিয়োগ দিচ্ছে নিজেদের অফিসে। 

সেই সাথে ডিজিটাল মার্কেটীং করে নিজের ব্যবসাকেও ভালো একটা পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব নিমেষেই। আর অন্যদিকে উন্নত বিশ্বের কাছে আপনার কাজের চাহিদা তো থাকছেই। 

মোট কথা ডিজিটাল মার্কেটিং এ যদি ক্যারিয়ার করতে চান তাহলে আপনার কাছে রয়েছে এক বিশাল সুযোগ। 

কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং শুরু করবেন? 

ডিজিটাল মার্কেটিং শুধু একটি জিনিসের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয় তা আমরা দেখেছি। মার্কেটিং এর প্রকারভেদগুলোই হলো তার উজ্জ্বল প্রমাণ। তো ডিজিটাল মার্কেটিং শুরু করতে গেলেও আপনি সব গুলো করতে পারবেন না। আপনাকে কোন একটি নির্দিষ্ট মার্কেটিং সেক্টরকে বেঁছে নিতে হবে। যেমন আপনি বেঁছে নিতে পারে এসইও বা সার্চ অপ্টিমাইজেশন, কন্টেন্ট মার্কেটিং বা অন্য কোনোটি। 

আমাদের প্রথম ধাপ গেল সিলেকশন এর ক্ষেত্রে। সিলেকশন এর পর আপনাকে যা করতে হবে তা হলো একটি নির্দিষ্ট সময় নিয়ে সেই মার্কেটিং সমন্ধে ভালো রকমের ধারণা লাভ করা। অর্থাৎ বলতে চাচ্ছি সেই মার্কেটিং এর কাজ শেখা। 

উদাহরণস্বরুপ আপনি যদি শুরু করতে চান সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং তাহলে আপনাকে জানতে হবে সোশ্যাল মিডীয়া মার্কেটিং এ কি কি লাগে। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর বিভিন্ন কলাকৌশল সহ আরও নানা কিছু। মোট কথা একটি কোর্স করতে হবে। 

আর এই ধাপটি হবে আপনার শেখার ধাপ। 

ডিজিটাল মার্কেটার এর সাথে কাজ করুনঃ 

আপনি কাজ শেখার পর যেভাবে আগাবেন তার দ্বিতীয় ধাপে আছে একজন দক্ষ মার্কেটার এর সান্নিধ্যে কাজ করা। আপনাকে এ পর্যায় টাকে অভিজ্ঞতা অর্জনের পর্যায় হিসাবে বেঁছে নিতে হবে। আপনাকে মনে করতে হবে এ সময় আপনি কাজ করছেন শুধু শেখার জন্য। 

আর একজন দক্ষ মার্কেটার এর সাথে কাজ করার মাধ্যমে আপনার কাজের কোয়ালিটি যেমন বাড়বে তেমন অভিজ্ঞতাও। উক্ত অভিজ্ঞতা এবং যোগ্যতার সমন্ব্যে আপনি যখন আন্তর্জাতিক ফিল্ডে কাজ শুরু করতে যাবেন তখন খুব তাড়াতাড়িই সাফল্য পাবেন আশা করা যায়। 

এ পর্যায়ে ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যতম কিছু টিপস আপনাকে দিয়ে রাখতে চাই। নিচে তা দেয়া হলোঃ 

সোশ্যাল মিডিয়াকে কাজে লাগান 

সোশ্যাল মিডিয়াকে শুধুমাত্র চ্যাটের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখলেই কোনো কাজ হবে না। আপনাকে অন্য পন্থা দেখতে হবে। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর একটি বড়  প্লাটফর্ম। আর অন্যরাও সেই সুযোগটাকে কাজে লাগিয়েছে। তাই আপনার কাজ হবে যারা এই মার্কেটিং করছে তাদেরকে অনুসরণ করা। তারা কিভাবে মার্কেটিং করছে তা নজড়ে রাখুন। এর ফলে আপনার উন্নতি তরান্বিত হবে। 

নিজেকে আপ-টু ডেট রাখুন

আধুনিক পরিবেশ এর সাথে নিজেকে মানায়ে নিন। কখন কি পরিবর্তন হচ্ছে তা খেয়ালে রাখুন। এতে করে আপনি মার্কেটিং স্ট্রাটেজিগুলো ধরতে পারবেন। আর মার্কেটিং স্ট্রাটেজি ধরতে পারাই হলো ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যতম একটি কৌশল। একজন মার্কেটার এর স্কিল বৃদ্ধি করতে এটি আপনাকে করতে হবে। 

নেটওয়ার্ক বৃদ্ধি করুন 

যোগযোগ করতে শিখুন। নেটওয়ার্ক বৃদ্ধির মাধ্যমে অন্যের সাথে যোগাযগ করুন। বিভিন্ন সেমিনারে অংশ নিন। এতে করে যেমন স্কিল বৃদ্ধি পাবে তেমনি আপনার যোগযোগ করার ক্ষমতাও বৃদ্ধি পাবে। আশা করি বুঝতে পেরেছেন। 

কোডিং সম্পর্কে ধারণা তৈরি করুন 

ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে গেলে আপনাকে হালকা কোডিং সমন্ধে জানতেই হবে যদি আপনি একজন প্রো লেভেল এর মার্কেটার হতে চান। এইচ টি এম এল, বা সিএস এস ইত্যাদি সম্পর্কে হালকা জ্ঞানার্জন করুন। এতে করে আপনার গ্রহণযোগ্যতা আরও বৃদ্ধি পাবে। সেই সাথে স্কিল বা দক্ষতাও বৃদ্ধি পাবে। 

আমাদের আজকের আর্টিকেলটি আমরা আলোচনা করলাম ডিজিটাল মার্কেটিং কি, কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং শুরু করবেন। সেই সাথে আলোচনার এক পর্যায়ে আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং এর টিপস  সমন্ধেও জেনেছি। সর্বোপরি ডিজিটাল মার্কেটিং শুরু করার একটা মোটামুটি ধারণা আমাদের হয়েছে আশা করা যায়। 

এমনি আর্টিকেল পেতে আমাদের সাথেই থাকুন। পরবর্তী আর্টিকেল পেতে ফলো করে রাখুন। 

To Write Your Thoughts Please Login First

Login

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় । গুগল এডসেন্স এর নিয়ম

গুগল এডসেন্স কে সোনার হরিণ ও বলা হয়। কেননা এটা খুবই মূল্যবান একটি এডভার্টিসমেন্ট একাউটন্ট। আজকে আমি আলোচনা করব কিভাবে গুগল এডসেন্স পাওয়া যায় ও...

ফেসবুক থেকে কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায়- জানুন বিস্তারিত!!

সবচেয়ে সেরা সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম এর কথা জিজ্ঞেস করলে আপনার কাছে তার উত্তর কি হবে? নিশ্চয় ফেসবুক তাই না? হ্যাঁ, আপনার মতো ৫ বিলিয়ন মানুষের...

অনলাইন ইনকামের গোপন রহস্য- জিনে নিন এবং ধুমসে অনলাইন আয় করুন

অনলাইন ইনকাম বিষয়টি এখন একটি ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেকেই চাকরি এবং পড়ালেখার পাশাপাশি অনলাইন থেকে ভালো পরিমাণে ইনকাম করছেন। আবার অনেকেই এই পেশা নতুন করে...

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি? Graphics Design করে কিভাবে আয় করবেন ?

আমরা মুভি কিংবা অ্যানিমেশন সবাই দেখে থাকি| যে কোনো ক্ষেত্রে এরকম কিছু বিষয় থাকে যেখানে গ্রাফিক্স ডিজাইন উপস্থিত। কিন্তু আমরা সেগুলো ব্যবহার করে থাকলেও ভাবি না মূল...