icon
Article Details

নোটিশ: পেমেন্ট সংক্রন্ত নীতিমালা পরিবর্তন করা হয়েছে। নীতিমালা পড়ে একশন নেয়ার জন্য অনুরোধ করা হলো। অন্যথায় পেমেন্ট নিয়ে বিরম্বনায় পড়তে পারেন। বিস্তারিত বিস্তারিত এখানে

মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায় | অনলাইনে ইনকাম করার সহজ কয়েকটি উপায়

img by Tarek
21 Nov, 2023

মাসের ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায় খুঁজতে হয়তো আমাদের এই আর্টিকেলটিতে প্রবেশ করেছেন। মূলত প্রতি মাসে 10000 টাকা আয় করার উপায় খুঁজে বের করা তেমন একটা কঠিন ব্যাপার নয়। তবে মাসে 10000 টাকা আয় করা বড় একটি চ্যালেঞ্জ। 

আপনার মূল্যবান সময়, কাজের দক্ষতা, অপর্যাপ্ত জ্ঞানের অভাবে বর্তমানে বেকার অবস্থায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন। বড় বড় শিক্ষাগত যোগ্যতা সার্টিফিকেট নিয়ে কোন চাকরি খুঁজে পাচ্ছেন না। 

আর এই সময়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম যেভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। তার সাথে সামঞ্জসতার রাখতে হলেও প্রয়োজন পড়ে অনেক ইনকাম করা। তবে ইনকাম কিভাবে করা যায়। শুধুমাত্র চাকরি করতে হবে এমনটা কিন্তু কোথাও বলা নেই। 

মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

চাকরি করা ছাড়াও মানুষ বর্তমানে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করে যাচ্ছে। আপনারা সে বিষয়ে গুগল ঘাটে দেখলেই বুঝতে পারবেন। এছাড়া আপনার আশেপাশের লোকজনদের কাছে খোঁজ খবর নিলেও এ বিষয়ে জানতে পারবেন। 

এখন আপনি যদি বয়স্ক প্রাপ্ত ব্যক্তি হয়ে থাকেন। এবং আপনার যদি কোন কিছু বোঝার ও সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা থাকে। সে ক্ষেত্রে আপনিও পারবেন চাকরি ছাড়া অনলাইনে টাকা আয় করতে। 

শুধুমাত্র কয়েকটি পদক্ষেপ মাথায় রাখলে আপনি মাস শেষে সর্বনিম্ন 10 হাজার টাকায় করতে পারবেন। 

তো কিভাবে অনলাইনে কাজ করে ইনকাম করবেন এটা আপনাকে আমরা হাতে-কলমে শিখিয়ে দিতে পারব না। হয়তো কয়েকটি পদ্ধতি বলে দিতে পারব। আর পুরোটা আপনার নিজের কন্ট্রোলে নিতে হবে। বিশেষ করে অনলাইন থেকে ইনকাম করার জন্য আপনাকে বেশি বেশি রিসার্চ করতে হবে। 

তাই আপনি যদি মাসে 10000 টাকা আয় করার উপায় জানতে চান তাহলে আমাদের লেখাটি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পড়ুন। 

মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

বর্তমান সময়ে, অনলাইন থেকে মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করা অনেক সহজ হয়ে উঠেছে। আমরা এমন কিছু উপায় সম্পর্কে বলে দিব। যেগুলোতে প্রতিদিন দুই থেকে তিন ঘন্টা কাজ করে, ঘরে বসে 10,000/- টাকা রোজগার করতে পারবেন। 

তোমার সাথে ১০ হাজার টাকা আয় করার এমন কিছু উপায় হল-

  • গুগল এডসেন্স থেকে আয়।
  • ইউটিউব থেকে আয়।
  • ফেসবুক থেকে আয়।
  • ডাটা এন্ট্রি করে আয়।
  • বিজ্ঞাপন দেখে আয়্
  • ছবি বিক্রি করে আয়।
  • আর্টিকেল লিখে আয়।

তো চলুন এ বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক। কোন সেক্টরে কিভাবে কাজ করতে হয়। 

গুগল এডসেন্স থেকে আয়

গুগল অ্যাডসেন্স হলো- গুগলের সবথেকে বড় বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক। তো আপনি যদি মাসে ১০ হাজার টাকা ইনকাম করার উপায় খোঁজেন। তাহলে সর্বপ্রথম আমি আপনাকে পরামর্শ দিব আপনি গুগল এডসেন্স দ্বারা ইনকাম করুন। কিন্তু আমাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছে, যারা কিনা গুগল এডসেন্স থেকে কিভাবে ইনকাম করতে হয় সে বিষয়ে জানে না। 

তো তাদের উদ্দেশ্যে বলছি আপনি যদি গুগল এডসেন্স দ্বারা বিজ্ঞাপন দেখে ইনকাম করতে চান? তাহলে, কয়েকটি উপায় ইনকাম করতে পারবেন। 

আরো দেখুনঃ

তার মধ্যে সবথেকে সহজ এবং লাভজনক মাধ্যম হলো- ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করে এবং ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে। আপনার কাছে যদি একটি ওয়েবসাইট থাকে বা ইউটিউব চ্যানেল থাকে, সেখানে কন্টেন্ট পাবলিশ করে, গুগল এডসেন্স দ্বারা ইনকাম করতে পারবেন। 

এক্ষেত্রে আপনি যদি ওয়েবসাইট দ্বারা গুগল এডসেন্স মনিটাইজেশন করে ইনকাম করতে চান? তাহলে আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করে, ওয়েবসাইট নিশ অনুযায়ী নিয়মিতভাবে আর্টিকেল পাবলিশ করতে হবে। যখন আপনাদের ওয়েবসাইটে ২০ থেকে ৩০ টি কনটেন্ট হয়ে যাবে। এবং নিয়মিতভাবে ভিজিটর/ট্রাফিক আসা শুরু করবে। 

আরো পড়ুনঃ

সেই সময় গুগল এডসেন্সের পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন। গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য আপনার ওয়েবসাইটে ইউনিক আর্টিকেল লিখতে হবে। কোন প্রকার কপিরাইটিং কন্টেন্ট আপনার ওয়েবসাইটে পাবলিশ করা যাবে না। 

আপনার ওয়েবসাইট গুগল এডসেন্স আবেদন করার পর, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে, আপনারা সর্বোচ্চ ১৪ দিনের মধ্যে এডসেন্স অ্যাপ্রভাল করে নিতে পারবেন। আর আপনার সাইডে এডসেন্স অ্যাপ্রভাল হয়ে গেলে, এডসেন্স দ্বারা বিজ্ঞাপন কোড গুলো আপনার ওয়েবসাইট পোস্টে যুক্ত করে, ইনকাম করতে পারবেন, বিজ্ঞাপন ইম্প্রেশন এবং বিজ্ঞাপন ক্লিক এর মাধ্যমে। 

অন্যদিকে আপনি যদি ইউটিউব চ্যানেল, তৈরি করে গুগল এডসেন্স মনিটাইজেশন করতে চান? সে ক্ষেত্রে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের জন্য নির্দিষ্ট ক্যাটাগরি অনুযায়ী ভিডিও তৈরি করে, নিয়মিত আপলোড করতে হবে। পর্যাপ্ত পরিমাণের ভিডিও আপলোড করা হলে, ধীরে ধীরে যখন দর্শক আপনার ভিডিও দেখতে আসা শুরু করবে। 

এবং ইউটিউব চ্যানেলে ১০০০ সাবস্ক্রাইবার এবং ৪০০০ ঘন্টা ওয়াজ টাইম পূরণ হবে। তখন আপনারা ইউটিউব চ্যানেলটি গুগল এডসেন্স দ্বারা মনিটাইজেশন করে নিতে পারবেন। এডসেন্স মনিটাইজেশন হলে ইউটিউব ভিডিওতে আপলোড করা প্রতিটি ভিডিও থেকে ইনকাম করতে পারবেন ইমপ্রেশনের মাধ্যমে। মানে আপনার চ্যানেলে থাকা ভিডিওগুলো দর্শক যত বেশি দেখবে তত বেশি ইনকাম হবে। 

ইউটিউব থেকে আয়

বর্তমান সময়ে সবথেকে জনপ্রিয় ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম হল ইউটিউব। এমন কোন মানুষ নেই, যারা ইউটিউব ভিডিও দেখতে পছন্দ করে না। প্রতিটি মানুষ এখন অবসর সময় পেলেই ইউটিউবে ঘোরাঘুরি করে বিভিন্ন ধরনের ভিডিও দেখান। 

তো মানুষ কোন ধরনের ভিডিও সব থেকে বেশি দেখে, সে বিষয়ে আপনি youtube সার্চ করলেই ধারণা নিয়ে নিতে পারবেন। 

সেই ধারণা অনুযায়ী আপনার ইমেইল দিয়ে একটি ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করে, নিয়মিত ভিডিও আপলোড করবেন। তবে youtube এর শুধুমাত্র ভিডিও আপলোড করলে কিন্তু ইনকাম হবে না। ইউটিউব থেকে ইনকাম করার জন্য আপনাকে অবশ্যই গুগল এডসেন্স মনিটাইজেশন করতে হবে। 

আর গুগল এডসেন্স ইউটিউবে মনিটাইজেশন করতে চাইলে, ইউটিউবের শর্ত অনুযায়ী এক হাজার সাবস্ক্রাইবার এবং ৪০০০ ঘন্টা ওয়াচ টাইম পূরণ করতে হবে। 

অন্যদিকে আপনি যদি গুগল এডসেন্স দ্বারা ইউটিউব থেকে ইনকাম না করতে চান? সেক্ষেত্রে ইউটিউব ভিডিও মার্কেটিং করে ইনকাম করতে পারবেন। 

ইউটিউব ভিডিও মার্কেটিং বলতে, আপনারা বিভিন্ন প্রোডাক্ট বিক্রেতা কোম্পানিদের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করে, তাদের প্রোডাক্টগুলো ইউটিউব ভিডিওর মাধ্যমে প্রমোট করে, বিক্রি করে দিয়ে ইনকাম করতে পারবেন। 

ফেসবুক থেকে আয়

সারা বিশ্বে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম হল ফেসবুক। আপনারা চাইলে ফেসবুকের মাধ্যমে বিভিন্ন উপায়ে ইনকাম করতে পারবেন। 

তবে, আপনি যদি ফেসবুক থেকে আনলিমিটেড ইনকাম করতে চান? এবং বেশি টাকা ইনকাম করার পথ খোঁজেন। তাহলে আমি আপনাকে পরামর্শ দিব আপনি ফেসবুক একাউন্টে একই ফেসবুক পেজ ক্রিয়েট করে, ভিডিও আপলোড করার মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন। 

তবে ফেসবুক পেজে ভিডিও আপলোড করলেই আপনার ইনকাম হবে না। ইনকাম করার জন্য আপনাকে অবশ্যই ফেসবুক পেজ মনিটাইজেশন করতে হবে। আর মনিটাইজেশন করার জন্য আপনাকে ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করে তুলতে হবে। তারপর মনিটাইজেশনের জন্য এপ্লাই করে, মনিটাইজেশন নিয়ে বিজ্ঞাপন দেখে ইনকাম করতে পারবেন।

তো ফেসবুক পেজ থেকে আপনারা কিভাবে ইনকাম করবেন। সে বিষয়ে আমরা সিঙ্গেল পোস্ট পড়তে হবে। আর সেই বিষয়ে আমরা পর্বের আর্টিকেলে বিস্তারিতভাবে জানিয়ে দিয়েছি কিভাবে ফেসবুক পেজ থেকে ইনকাম করা যায়।

ডাটা এন্ট্রি করে আয়

অনলাইন সেক্টরে মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার আরো একটি সেরা মাধ্যম হলো ডাটা এন্ট্রি। ডাটা এন্ট্রি করার জন্য অনলাইনে অসংখ্য মার্কেটপ্লেস রয়েছে। যেগুলোতে, আপনার কাজের দক্ষতা অনুযায়ী একটি প্রোফাইল ক্রিয়েট করবেন। 

এবং আপনি যে ডাটা এন্ট্রি কাজ করতে আগ্রহী সে বিষয়ে, বিস্তারিত গুছিয়ে লিখবেন। যার ফলে বিভিন্ন কোম্পানি এবং ক্লায়েন্টরা আপনার প্রোফাইল দেখলে বুঝতে পারবে আপনি কি ধরনের কাজ করেন। তো ডাটা এন্ট্রি কাজ করার জন্য আপনাকে ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটে অ্যাকাউন্ট রেজিস্টার করতে হবে। 

ডাটা এন্ট্রি করার জন্য ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোর মধ্যে রয়েছে- আপওয়ার্ক, ফ্রিল্যান্সার, ফাইবার ইত্যাদি। আপনারা যে, কোন একটি মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট তৈরি করে, ডাটা এন্ট্রি কাজ খুঁজে নিতে পারবেন। 

আর্টিকেল লিখে আয়

আপনি যদি বিভিন্ন ভাষায় অর্থাৎ বাংলা এবং ইংরেজিতে, লেখালেখি করতে পছন্দ করেন। তাহলে আপনার জন্য সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে আমাদের এই ওয়েবসাইটটি। কারণ আমাদের এই ওয়েবসাইটটি প্রস্তুত করা হয়েছে, বেকারদের জন্য। 

আমাদের এই ওয়েবসাইটে লেখালেখির কাজ করে অসংখ্য মানুষ প্রচুর পরিমাণে টাকা ইনকাম করছে। আপনি যদি আর্টিকেল লিখে ইনকাম করতে চান? তাহলে আমাদের এই https://hotovaga.com ওয়েবসাইটে একটি অ্যাকাউন্ট ক্রিয়েট করতে পারেন। 

আরো পড়ুনঃ

আপনার ওয়েবসাইটে মেম্বার হওয়ার পর, আর্টিকেল লিখে আয় করার পাশাপাশি। নিচে দেওয়া আরো ছোট ছোট কাজ করে ইনকাম করতে পারবেন। যেমন-

১। রেফার করে অনলাইনে ইনকাম

২। টিম তৈরি করে অনলাইনে ইনকাম

৩। ক্যাপচা এন্ট্রি করে অনলাইনে ইনকাম

৪। গুগল সার্চ করে অনলাইনে ইনকাম

৫। বিভিন্ন ধরনের আর্টিকেল পড়ে অনলাইনে ইনকাম

৬। আর্টিকেল শেয়ার করে অনলাইনে ইনকাম

৭। মাইক্রো টাস্ক কমপ্লিট করে অনলাইনে ইনকাম

৮। গেমস খেলে অনলাইনে ইনকাম

৯। স্পিন এন্ড আর্ন থেকে অনলাইনে ইনকাম

১০। প্রতিদিন আর্টিকেল লিখে অনলাইনে ইনকাম

তাই আপনি যদি মাসের ১০ হাজার টাকা আয় করতে চান? তাহলে উপরে দেওয়া ছোট কাজ করে ইনকাম করা শুরু করুন। 

শেষ কথাঃ

আমরা আশা করি আজকের এই আর্টিকেলে আপনারা বিস্তারিত জানতে পারলেন। প্রতিমাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার সেরা উপায় গুলো। এখন আপনি যদি পার্ট টাইম হিসেবে এই কাজগুলো করতে চান? তাহলে, প্রতিদিন ২ থেকে ৩ ঘণ্টা সময় দিয়ে ইনকাম করতে পারবেন। 

আপনি যদি এই কাজ গুলোর উপর প্রফেশনাল ভাবে, নিযুক্ত হতে চান? তাহলে মাস শেষে শুধুমাত্র দশ হাজার নয়। 50+ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

এখন আপনি পার্ট টাইম কাজ করবেন নাকি ফুল টাইম কাজ করবেন। তারপর ওপরে আপনার উপর নির্ভর করছে। 

তো সর্বশেষ আপনাকে বলতে চাই আপনি যদি অনলাইন ইনকাম রিলেটেড আরও অন্যান্য আর্টিকেল পড়তে চান? তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটে নিয়মিত ভিজিট করুন।

ধন্যবাদ। 

Related News

View All

To Write Your Thoughts Please Log in First

Login
Home
Task
My Team
Latest News
User Guide