icon
Article Details

নোটিশ: পেমেন্ট সংক্রন্ত নীতিমালা পরিবর্তন করা হয়েছে। নীতিমালা পড়ে একশন নেয়ার জন্য অনুরোধ করা হলো। অন্যথায় পেমেন্ট নিয়ে বিরম্বনায় পড়তে পারেন। বিস্তারিত বিস্তারিত এখানে

ছাত্রদের টাকা আয় করার উপায় - পড়াশোনার পাশাপাশি আয় করার সুযোগ।

img by Tarek
25 Nov, 2023

আমরা জানি, প্রতিটি ছাত্রের প্রধান কাজ হচ্ছে, লেখাপড়া করা। তবে কেমন হয় যদি লেখাপড়ার পাশাপাশি অনলাইন থেকে টাকা আয় করা যায়। হ্যাঁ বন্ধুরা আপনারা চাইলে, ছাত্রজীবন থেকে অনলাইনে আয় করার সুযোগ পাবেন।

এবং ভবিষ্যতে ক্যারিয়ার করতে, অনেক সুবিধা পেয়ে যাবেন। 

কারণ আপনি যদি স্টুডেন্ট অবস্থায় অনলাইন সেক্টরে কাজ গুলো করা শুরু করেন। তাহলে সেটি ছাত্র জীবন শেষ করার পর আপনার কর্মজীবন খুঁজে দিতে অনেকটাই সহায়তা করবে।

আর সেই সাথে অনলাইন সেক্টরে কাজ গুলো করে, নিজের অভিজ্ঞতা বাড়ানোর সাথে সাথে নিজের পকেট খরচ চালানোর ব্যবস্থা করে ফেলতে পারবেন। 

বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং কিংবা অনলাইনে ইনকাম অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এখন স্কুল ও কলেজ এবং মাদ্রাসা পড়ুয়ার স্টুডেন্ট ফ্রিল্যান্সিং করে অনলাইনে টাকা ইনকাম করছে। 

আপনার কি জানেন বর্তমানে ৩৬ পার্সেন্ট এর বেশি লোক অনলাইন থেকে আয় করে। আর ঘরে বসে অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে কোন প্রকার শিক্ষাগত যোগ্যতার সার্টিফিকেট প্রয়োজন হয় না।

শুধুমাত্র আপনার কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে, সহজেই ছাত্র জীবনে মাসে 10000 টাকা থেকে শুরু করে 50 হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

যখন আপনার কাজের অভিজ্ঞতা বাড়তে থাকবে তখন ইনকামের পরিমাণটাও বাড়বে। 

আরও দেখুনঃ

আপনারা পড়াশোনার পাশাপাশি অবসর সময়ে বিভিন্ন কাজ করে অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন। বিশেষ করে, ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে এমন অসংখ্য কাজ রয়েছে। যার তুলনামূলকভাবে অনেকটাই সহজ এবং কম সময়ের মধ্যে করা যায়। 

অনলাইন সেক্টরের কাজগুলো ছাত্ররা সম্পন্ন করার মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারে। তবে ফ্রিল্যান্সিং ছাড়া অনলাইন সেক্টরে আরো অসংখ্য আয়ের মাধ্যম রয়েছে। যেগুলোর বিষয়ে আমরা এখন বিস্তারিতভাবে আলোচনা করব। 

তাই আপনি যদি ছাত্রদের টাকা আয় করার উপায় অর্থাৎ পড়াশোনার পাশাপাশি আয় করার সুযোগ খোঁজেন। তাহলে আমাদের লেখা আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত ধৈর্য সহকারে পড়ুন।

ছাত্রদের অনলাইনে আয় করতে কি কি লাগে?

অনলাইনে টাকা আয় করার জন্য অবশ্যই প্রয়োজনীয় কিছু জিনিস দরকার হয়। ছাত্রদের ক্ষেত্রে অনলাইনে আয় করতে ব্যতিক্রম কিছু নয়। তাই আপনাকে জানতে হবে অনলাইনে আয় করার জন্য কি কি লাগে। 

স্টুডেন্ট অবস্থায় অনলাইনে ইনকাম করতে গেলে কি কি জিনিস দরকার হবে। তা মূলত নির্ভর করবে আপনি কোন ক্যারিয়ারে কাজ করবেন।

ছাত্রদের টাকা আয় করার উপায় - পড়াশোনার পাশাপাশি আয় করার সুযোগ।

সাধারণত যে জিনিস গুলো অনলাইন আয় করার জন্য লাগবে সেগুলো হল-

  • আপনার কাছে একটি ডিভাইস থাকতে হবে। যা হতে পারে স্মার্ট ফোন, ল্যাপটপ বা কম্পিউটার। বর্তমান সময়ে প্রতিটি স্টুডেন্টদের কাছে যেহেতু স্মার্টফোন রয়েছে তারা চাইলে স্মার্ট ফোন দিয়েই অনলাইন আয় করতে পারবে। 
  • ডিভাইস থাকার পাশাপাশি আপনার কাছে ভালো একটি ইন্টারনেট কানেকশন থাকতে হবে। যা হতে পারে মোবাইল ডাটা, মডেম, ওয়াইফাই ইত্যাদি। 
  • সে সাথে স্মার্টফোন, কম্পিউটার বা ল্যাপটপে ইন্টারনেট ব্রাউজিংয়ের নূন্যতম জ্ঞান। 

তো আপনার কাছে যদি এই জিনিস গুলো থেকে থাকে। সহজেই স্টুডেন্ট লাইফে অনলাইন থেকে আয় করা শুরু করতে পারবেন। 

আমরা এখানে ছাত্রদের পড়াশোনার পাশাপাশি আয় করার জনপ্রিয় কিছু সুযোগের সম্পর্কে বলে দেব। যেগুলোতে, কাজ করে নিজেকে অভিজ্ঞ করে তুলতে পারলে। ভবিষ্যতে পড়াশোনা শেষ করে সে কাজগুলোতে, নিজের ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারবে। 

তাই চলুন আর সময় নষ্ট না করে, বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক। 

ব্লগিং করে অনলাইনে টাকা আয়

ছাত্রদের জন্য অনলাইন আয়ের সব থেকে সেরা ও জনপ্রিয় আনলিমিটেড এবং লাইফটাইম আয়ের উপায় হলো ব্লগিং। আপনার যে আর্টিকেলটি পড়ছেন এটি আমাদের https://hotovaga.com একটি ব্লগিং ওয়েবসাইট। 

আপনারা আমাদের এই ওয়েবসাইটে যে বিজ্ঞাপন গুলো দেখতে পাচ্ছেন। এগুলোর মাধ্যমে মূলত আমাদের ওয়েবসাইটে ইনকাম হয়। তাই আপনিও চাইলে এমন একটি ব্লক ওয়েবসাইট তৈরি করে, ছাত্র জীবনে অনলাইনে আয় করা শুরু করতে পারবেন। 

ব্লগিং করে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনার ফুল টাইম কাজ করার দরকার করবেন না। 

আপনার পড়াশোনার পাশাপাশি পার্ট টাইম কাজ করে, ব্লগিং সেক্টর থেকে ইনকাম করতে পারবেন। তো প্রতিদিন আপনারা তিন থেকে চার ঘণ্টা সময় ব্যয় করলে মাসে অন্তত বিশ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত রোজগার করতে পারবেন। 

তবে ব্লগিং সেক্টরের সফলতা পেতে গেলে, আপনার কিছুদিন সময় লাগবে। তাই আপনাকে ধৈর্য সহকারে কাজ করতে হবে, তাহলে আপনি সফল হতে পারবেন। 

তো ব্লগিং করে কাজ করার জন্য আপনাকে অবশ্যই একটি ওয়েবসাইট বানাতে হবে। ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আপনারা ফ্রি ব্লগার ডটকম ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া আপনি যদি প্রফেশনাল ভাবে ওয়েবসাইট বানাতে চান তাহলে ওয়ার্ডপ্রেসের মাধ্যমে কিছু টাকা খরচ করে একটি ওয়েবসাইট বানিয়ে নিবেন। 

 

তারপর সেই ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ক্যাটাগরির আর্টিকেল লিখে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করবেন। আর গুগল এডসেন্স আবেদন করার পর, আপনার ওয়েবসাইট অনুমোদন দিয়ে দেয়া হলে। তখন থেকেই মূলত আপনার ওয়েবসাইটে আমাদের মত বিজ্ঞাপন দেখে ইনকাম করা শুরু করতে পারবেন। 

 

ইউটিউব করে অনলাইনে টাকা আয়

ইউটিউব চ্যানেল থেকে টাকা আয় করা যায়, এ বিষয়ে জানেন না এমন লোক খুঁজে পাওয়া যাবে না। তাই ছাত্র জীবনে অনলাইনে টাকা আয় করার আরো একটি জনপ্রিয় উপায় হলো ইউটিউব। 

বর্তমান সময়ে, youtube এর ভিডিও কনটেন্ট গুলোর জনপ্রিয়তা অনেক বেশি। তাই ভিডিও কনটেন্ট মার্কেটিং এর প্রতি আগ্রহ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। 

আপনারা ইউনিক ভিডিও তৈরি করে, ইউটিউব চ্যানেলে পাবলিশ করার মাধ্যমে, ছাত্র জীবনে পড়াশোনার পাশাপাশি অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন। 

ইউটিউব চ্যানেল থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনার হাতে থাকা স্মার্টফোন ব্যবহার করে, বিভিন্ন ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার ইন্সটল করে, প্রফেশনাল ভাবে ভিডিও এডিটিং করে, ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করতে পারবেন। 

আর আপনার ইউটিউব চ্যানেলে যখন এক হাজার সাবস্ক্রাইবার এবং ৪০০০ ঘন্টা ওয়াচ টাইম পূরণ হবে। তখন গুগল এডসেন্স করার সুযোগ পাবেন। 

আপনার যদি একবার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন করতে পারেন। তারপর টাকা ইনকাম করা নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। আপনি যত বেশি ভিডিও আপলোড করবেন তত বেশি পরিমানে ইনকাম হবে। 

অনলাইনে ছবি বিক্রি করে টাকা আয়

আমরা জানি প্রতিটি শিক্ষার্থী এখন স্মার্টফোন ব্যবহার করে। তো প্রতিটি ছাত্র যদি চাই তাদের মোবাইল দিয়ে তোলা ছবিগুলো বিক্রি করার মাধ্যমে আয় করবে, তাহলে তাদের এই সুযোগটি রয়েছে। 

বর্তমানে অসংখ্য শিক্ষার্থী ফটোগ্রাফি করে, বেশ ভালো পরিমানে টাকা ইনকাম করছে যা দিয়ে তার লেখাপড়ার খরচ চালাচ্ছে। 

বর্তমানে এমন অসংখ্য অনলাইন প্লাটফর্ম রয়েছে, যেগুলোতে নিজের তোলা ছবিগুলো বিক্রি করার মাধ্যমে ইনকাম করা যায়। 

তাই ছাত্র জীবনে অনলাইনে ছবি বিক্রি করে টাকা আয় করতে চাইলে, নিচে দেওয়া ওয়েবসাইটগুলো ভিজিট করে, দেখতে পারেন।

সে ওয়েবসাইট গুলোতে মূলত, আপনার তোলা ছবিগুলো বিক্রি করে আয় করতে পারবেন। যেমন-

  • Adobe Stock.
  • Canstockphoto.
  • Alamy.
  • Istockphoto.
  • Shutterstock.

উক্ত ওয়েবসাইট গুলোতে অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করে, আপনার তোলা ছবিগুলো বিক্রি করতে পারবেন। যা থেকে ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করার সুযোগ রয়েছে। 

কন্টেন্ট রাইটিং করে অনলাইনে টাকা আয়

ছাত্র জীবনে অনলাইনে টাকা আয়ের আরো একটি ভালো মাধ্যম হলো কন্টেন্ট রাইটিং করে আয়। বর্তমান সময়ের ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের যুগে, ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি বড় অংশ দখল করে রয়েছে কন্টেন্ট মার্কেটিং। 

উপরের অংশে যে ব্লগিং বা ইউটিউবে অনলাইনে আয় করার কথা বলেছি। এগুলো কিন্তু কন্টেন্ট রাইটিং এর আওতায়। 

তো যাই হোক অনলাইনে এমন অসংখ্য মার্কেটপ্লেস রয়েছে যেগুলোতে আপনারা কন্টেন্ট রাইটার হিসেবে, ছাত্র জীবনে অনলাইনে টাকা আয় করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আমি আপনাকে একটি সুযোগ বলে দিতে পারি। যা হল- আপনি যদি একজন স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন এবং লেখালেখি করে ইনকাম করতে চান?

আরো পড়ুনঃ

তাহলে আমাদের এই যে ওয়েবসাইটে দেখতে পাচ্ছেন। এটি একটি মাইক্রো জব ওয়েবসাইট। আমাদের এই ওয়েবসাইটে আপনারা লেখালেখি করার পাশাপাশি আরও বিভিন্ন ছোট ছোট কাজ করে ইনকাম করতে পারবেন। 

আমাদের এই ওয়েবসাইট থেকে https://hotovaga.com লেখালেখি করে অর্থাৎ কনটেন রাইটিং জব করে ইনকাম করতে চাইলে, এখনই একটি অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করে ফেলুন।

আর আমরা আশা করি আপনি যদি ইউনিক ভাবে কন্টেন্ট লিখতে পারেন। তাহলে মাস শেষে, এখান থেকেই সর্বনিম্ন ১০ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন। 

আরো দেখুনঃ

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা ছাত্রদের টাকা আয় করার উপায় হিসেবে, আমরা এখানে অসংখ্য অনলাইন সেক্টর সম্পর্কে জানিয়ে দিয়েছি। এখন আপনি যদি পড়াশোনার পাশাপাশি আয় করার সুযোগ গুলোর মধ্যে যেকোনো একটি সুযোগ বেশি নেন। 

তাহলে ছাত্র জীবন অনেক সুখের হবে। কারণ প্রতিদিন আপনারা দুই থেকে তিন ঘন্টা কাজ করলেই, এই সকল অনলাইন সেক্টর থেকে 10 হাজার টাকা থেকে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করার সুযোগ পেয়ে যাবে। 

এখন সিদ্ধান্ত নিতে হবে, আপনাকে আপনি অনলাইনের কোন সেক্টরে কাজ করবেন। তবে আমি আপনাকে পরামর্শ দিব, আপনি যদি অনলাইন থেকে আই করতে চান? তাহলে আমাদের এই ওয়েবসাইটে একটি অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করে আর্টিকেল রাইটিং এর কাজ শুরু করে দিতে পারেন। 

তো আমাদের এই ওয়েবসাইট থেকে অনলাইন ইনকাম রিলেটেড আরও নতুন নতুন পোস্ট পড়তে নিয়মিত ভিজিট করুন।

ধন্যবাদ।

Related News

View All

To Write Your Thoughts Please Log in First

Login
Home
Task
My Team
Latest News
User Guide