যারা ইমেইল ভেরিফিকেশন করতে পারছেন না তারা দ্রুতই ভেরিফিকেশন করতে পারবেন। আমাদের ছোট আপডেট চলছে। আপনারা কাজ চালিয়ে যান।

অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয় ২০২২

বর্তমানের যুগ অনলাইনের যুগ। আমরা সকলেই ছোট-বড় যে কোন কাজেই অনলাইন ব্যবহার করে থাকি। আর আমরা এটাও জানি যে অনলাইন থেকে টাকা আয় করা যায়। তোমরা এটা জানিনা কিভাবে আমরা অনলাইন থেকে টাকা আয় করব? অনলাইনে আয় করার জন্য অনেকে অনেক ধরনের প্রশ্ন?
অনলাইন থেকে ইনকাম করা টাকা পাওয়া যায়? অনলাইনে কাজ সম্পূর্ণ প্রতারক? আসলে এই সকল প্রশ্নের উত্তর নিয়ে আজকে আমাদের এই আর্টিকেলটি লেখা। কিভাবে কোথা হতে অনলাইনে আয় করবেন সেই বিষয় নিয়ে বলা হয়েছে এ আর্টিকেল।
 
আমরা ইতিমধ্যে আপনাদের সাথে আরো অনেকগুলো অনলাইন থেকে আয় করার বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করে এসেছি। সেই জন্য আমি আজ আপনাদের সাথে কথা বলবো না কিভাবে ছবি বিক্রি করে টাকা আয় করা যায়। অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয় করার জন্য আপনাকে অবশ্যই আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে।

বর্তমানে আমরা সকলেই যেখানেই যাই সেখানেই বিভিন্ন ধরনের ছবি উঠিয়ে থাকি এবং কারো কারো পৃথিবীর অন্য একটি শখ হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমরা নিজেরা বা নিজের বন্ধুদের ছবি উঠিয়ে বিভিন্ন জায়গায় আপলোড করি ফেসবুক হোয়াটসঅ্যাপ টুইটার সোশ্যাল মিডিয়াতে। আপনি কি জানেন আপনার এই তোলা ছবি দিয়ে আপনি আপনার পকেট খরচের টাকা উপার্জন করতে পারেন।

চলুন বিস্তারিত আলোচনা করি কিভাবে ছবি বিক্রি করে টাকা ইনকাম করবেন।

এই টপিকটি হতে পারে আপনার জন্য অনলাইন থেকে টাকা আয় করার সবথেকে সহজ একটি মাধ্যম যদি আপনি ছবি উঠাতে পছন্দ করেন। এতে করে আপনি চুপচাপ বসে না থেকে আপনার স্মার্ট ফোন দিয়ে ছবি উঠিয়ে অনলাইনে বিক্রি করে টাকা আয় করতে পারেন। তবে এ কাজের জন্য আপনাকে সামান্য একটু ধৈর্যের প্রয়োজন হবে।

কিভাবে অনলাইন ছবি বিক্রি করতে হয় | কোথায় ছবি বিক্রি করে আয় করা যায়?

আপনি যদি একজন ভাল ফটোগ্রাফার হন তাহলে আপনি আপনার নিজের তোলা ছবিগুলো দুইটি উপায় বিক্রি করতে পারেন। যেগুলো নিম্নলিখিতঃ

  • বিভিন্ন অনলাইন ইমেজ স্টক সাইটে বিক্রি করা
  • নিজস্ব সাইটের মাধ্যমে বিক্রি করা।

ইমেজ স্টক সাইটে ছবি বিক্রি করার সুবিধা এবং অসুবিধা নিয়ে বিস্তারিত নিচে আলোচনা করা হলোঃ

সুবিধাঃ

আপনি যদি মোটামুটি ভালো ছবি উঠাতে পারেন এবং হালকা পরিমাণে এডিট করতে পারেন তাহলে আপনার জন্য সবচেয়ে ভালো হবে অনলাইনে থাকবেন স্টক ইমেজ সাইডে আপনার তোলা ছবিগুলো বিক্রি করা।

এখনি আপনার সবচেয়ে প্রধান কাজ হলো শুধু আপনার সুন্দর সুন্দর ছবিগুলো তুলে হালকা পরিমাণে এডিট করে সেই সাইটে আপলোড করে দেওয়া। এরপর প্রয়োজনীয় সকল ঐ সাইট থেকে কাজ করা হবে। সাইটে আপলোড করার পর আপনার ছবি গুলো যদি কোন ক্লায়েন্ট কিনে নেয় তাহলে আপনি সেই প্রাইস থেকে কিছু কমিশন পেয়ে যাবেন।

অসুবিধাঃ

এই সাইটের আপলোড করার পর আবার ছবিগুলো বিক্রি হলে আপনাকে দেওয়া হবে 30 থেকে 40 শতাংশ পর্যন্ত টাকা। অর্থাৎ আপনার ছবিটি যদি 100 টাকা বিক্রি করা হয় আপনাকে দেয়া হবে 30 অথবা 40 টাকা। এবং বাকি টাকাগুলো ওরা 60 থেকে 70 পার্সেন্ট টাকা তারা নিজেরা রেখে দেবে।

এখন আপনাদের সাথে আলোচনা করব কিভাবে নিজের সাইটে ছবি বিক্রি করা যায় এবং সুবিধা ও অসুবিধা নিয়ে।

সুবিধাঃ

যেহেতু এ সাইটটি আপনার নিজের থাকবে তাই আপনার বিক্রি করার ছবি আপনি যত টাকায় বিক্রি করুণা তার 100 পার্সেন্ট টাকায় আপনার নিজের কাছে থাকবে। এখন আপনি যদি চান অন্যের তোলা ছবি আপনার সাইটে আপলোড করুন তাহলে আপনি তাদের তোলা ছবি বিক্রি করেও কিছু কমিশন নিতে পারেন।

অসুবিধাঃ

ইমেজ স্টক সাইডে আপনার কাছে ছবি আপলোড করা এবং বাকি কাজগুলো সেই সাইট থেকেই করা হয়ে থাকে এখন কথা হল আপনার ছবিগুলো যদি বিক্রি করতে হয় তাহলে অবশ্যই আপনার ছবিগুলো কে বিভিন্ন ভিজিটর দের কাছে দেখাতে হবে। এখন কথা হল আপনার সাইটে যেহেতু আপনি নিজেই এডমিন আপনার নিজেই ছবি আপলোড করে তাহলে সকল কাজগুলো আপাকে নিজেই করতে হবে এবং ছবির জন্য একটি নির্দিষ্ট গ্যালারি তৈরি করতে হবে। এবং আপনার অনেক অনেক ভিজিটর দরকার হবে যারা অনলাইন থেকে ছবি কেনার জন্য অনলাইনে ঘুরাঘুরি করে।

এই কাজের জন্য অবশ্যই আপনাকে একটি সাইট বানানোর জন্য একটি ডোমেইন এবং হোস্টিং এবং সুন্দর করে ডিজাইন করতে হবে আর এর জন্য প্রয়োজন অনেক নগদ অর্থ।

তাই আমরা বলি আপনার প্রথম কথাটা থাকাই ভালো। ইমেজ স্টক সাইট হোক আর নিজের সাইট হোক আপনার ছবিগুলো যতবার বিক্রি করা হবে যতবারই আপনি তার থেকে কমিশন পেয়ে যাবেন। তাই বলে এত ঝামেলার না করে আপনার ইমেজ স্ট্রোক সাইডে কাজ করা ভালো।

কিভাবে স্টক ইমেজ ওয়েবসাইটে ছবি বিক্রি করবেন ? (How to buy photo stock image website?)

প্রথমেই আপনাকে খুঁজে বের করতে হবে আপনি কোন সাইটে আপনার ইমেজ গুলো বিক্রি করতে চান এবং সাইটটার জনপ্রিয়তা কেমন। অবশ্যই আপনি একটি ভাল মানের সাইটে আপনার ছবিগুলো বিক্রি করবেন তাহলে আপনার ছবিগুলো বেশি বিক্রি হবে এবং বেশি অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। তারপরও সাইটে সাইন আপ করে আপনাকে খুঁজে বের করতে হবে Become A Contributor বা Submit Image বা Sell Your Image এই অপশন গুলো কে। 

এই সাইটে সাইন আপ করার পর প্রত্যেকটি ড্যাশবোর্ডে প্রবেশ করাবে এবং সেখানেই পেয়ে যাবেন আপনার ছবি আপলোড করার অপশন এবং উপার্জন জমা হওয়ার একটি অপসারণ অর্থাৎ প্রোফাইল। এখন আপনার কাজ হল ভালো ভালো ছবি তোলে এবং হালকা পরিমাণে এডিট করেছি ছবিগুলো সেখানে আপলোড করা এবং ভালো ছবি আপলোড করবেন যেন সেই ছবিগুলো বেশি পরিমাণে বিক্রি হয় এবং তার থেকে ভালো পরিমাণে কমিশন পাওয়া যায়।

ইমেজ স্টক সাইট গুলো কিভাবে কাজ করে? (How to work stock image website?)

ইমেজ স্টক সাইট গুলো মূলত ফ্রিল্যান্সিং সাইট গুলোর মতই কাজ করে থাকে। যেখানে বিভিন্ন দেশের লোকজন তাদের চাহিদা সম্পন্ন জিনিস খোঁজার জন্য এসব সাইট ব্যবহার করে থাকে এবং তাদের মধ্যে তিল হলে সাইটে থার্ড পার্টি হিসেবে কাজ করে এবং সিকিউরিটি দিয়ে থাকে।

অনলাইনে ছবি বিক্রি করে কত টাকা আয় করা যায়?

টাকা আয় করার জন্য অবশ্যই আপনাকে পরিশ্রম করতে হবে এবং আপনি কতটুকু পরিশ্রম করতে পারেন আপনার ইনকাম নির্ভর করে আপনার সেই পরিশ্রমের উপর সেটা অনলাইন হোক আর অফলাই। এটা কেউ নির্দিষ্ট করে বলতে পারবে না। আপনার যদি ধৈর্য এবং স্ক্রিল ভালো থাকে তাহলে আপনার দ্বারা ভালো পরিমাণে টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

অনলাইন প্লাটফর্মে টাকায় করার জন্য আপনাকে অবশ্যই বিশেষ ধর্মীয় সম্পন্ন হতে হবে কমপক্ষে ছয় মাস ধৈর্য ধারণ করার পর তা অপেক্ষাকৃত আই শুরু হতে পারে। এখন কথা হল অনেক কাজে রয়েছে যেগুলো কাজ করার সাথে সাথে পেমেন্ট করে থাকে হ্যাঁ সেগুলো পেমেন্ট করে থাকে কিন্তু বেশিদিন দীর্ঘস্থায়ী হয়না। শুধু ছবি বিক্রি করে আয় করার জন্য আপনাকে ধৈর্য প্রয়োজন সেটা নয় আপনার সকল কাজের জন্য আপনার ধরে কাজ করা প্রয়োজন।

অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয় করতে চাইলে কি কি লাগে?

অনলাইনে ছবি বিক্রি করার জন্য আপনার কাছে একটি মোবাইল ফোন ক্যামেরা থাকলেই হবে পাশাপাশি একটু ছবি উঠানোর অভিজ্ঞতা থাকতো সেটা আমাকে একটু এগিয়ে নিয়ে যেতে সহায়তা করবে।

কে বা কারা এই ছবি গুলো কিনে নেই?

অনেকের মনেই প্রশ্ন আসে যে অনলাইনে আপলোড করা ছবিগুলো কারা কিনে নে?

মনে করুন আপনি একজন ইউটিউবার বা একজন ব্লগার। এখন আপনি যদি কোন একটি বিষয়ে ভিডিও বানাতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে কিছু ভিডিও ক্লিপ লাগবে এবং যা এর আগে কেউ ব্যবহার করে নি। এই ক্লিপগুলো সংগ্রহ করার দুটি হল কাউকে দিয়ে এগুলো বানিয়ে নেওয়া এবং অনলাইন থেকে সংগ্রহ করা। ছবি কেনার প্রধান কারণ হলো যাতে কোন প্রকার কপিরাইট না হয় আর এই কারনেই বিভিন্ন প্রকার তাদের জন্য ছবিগুলো কিনে নেয়।

কাউকে দিয়ে ভিডিও তৈরি করা ছবি তোলার জন্য ভাড়া করে আনা অনেক খরচের ব্যাপার আর এই কাজের ঠিক বিপরীত সুবিধার জন্যই এই স্টক ইমেজ সাইজ গুলো তৈরি করা হয়েছে। যেখানে আপনি আপনার রুচিসম্মত সকল ভিডিও বা ছবি পেয়ে যাবেন যার ধরুন আপনার সময় এবং অর্থ দুটোই বেঁচে যাবে।

চলুন নিচে কিছু স্টক ইমেজ সাইট নিয়ে কথা বলিঃ

1. Shutterstock.com

বিশ্ব বিখ্যাত সবচেয়ে জনপ্রিয় মাইক্রোস্কোপ ইমেজ এজেন্সির গুলির মধ্যে প্রথম সারির মধ্যে রয়েছে shutterstock.com এই সাইটটি। যেখানে আপনি আপনার ইচ্ছামত ছবি তুলে সেখানে আপলোড করে ইনকাম করতে পারেন হাজার হাজার টাকা। ছবি বিক্রি করে আয় করার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। তারা তাদের ইউজারদের ছবি বিক্রির 30 থেকে 40 শতাংশ পর্যন্ত টাকা কমিশন দিয়ে থাকে। তবে অনেক সময় ও এই সাইটের ওদের টাকার পরিমাণ একটু কম বেশী করে নেয়।

যখন আপনি এই সাইটে প্রথম লগইন করবেন তখন আপনার ছবি গুলো সাধারণত কম বিক্রি হবে এবং তাই প্রথম দিকে আপনার ছবিগুলো গুগল আপনাকে দেওয়া হবে 15 পারসেন্ট কমিশন। আপনার আপলোড করা আছে চলবে আপনার ইনকাম বেড়ে যাবে অর্থাৎ বেশি পরিমাণে কমিশন পাবেন। আপনি যদি ভাল মানের ছবি উঠাতে পারেন তাহলে আপনার জন্য দেওয়া হবে 100 ডলার পর্যন্ত। আরেকটি সম্ভব শুধুমাত্র একটি ছবি আপলোড বা তুলে।

এই সাইটের শর্ত অনুযায়ী আপনি যদি 25 হাজারের বেশি ছবি বিক্রি হয় তাহলে আপনাকে 80 পার্সেন্ট করে কমিশন দেওয়া হবে। আপনার ছবি গুলো বেশি বিক্রি হওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই ভালো মানের ছবি আপলোড করতে হবে ।

তারা তাদের ইউজারদের সঠিক সময়ে নিয়মিত পেমেন্ট করে থাকে ।প্রথম দিকে আপনার ইনকাম একটু কম হলে ধীরে ধীরে সেটা বেড়ে যাবে। আপনি চাইলে তাদের অফিসিয়াল অ্যাপটি ব্যবহার করে আগেই কাজ শুরু করে দিতে পারে ন।

2. Adobe Stock

এডোবি স্টক একটি জনপ্রিয় স্টক ইমেজ প্ল্যাটফর্ম এই সাইটে আপনি আপনার ছবিগুলো অনেক সহজেই আপলোড করে বিক্রি করতে পারেন এবং টাকা আয় করতে পারেন।

এই সাইটের অনলাইনে ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে। বিভিন্ন দেশের বড় বড় বাজারের দিকে ছবি কেনার জন্য আসে। আমি যদি ভালো ছবি উঠাতে পারেন তাহলে এই সাইটে আপনার একটি ভালো অবস্থান হয়ে যাবে এবং প্রতিমাসে আপনি আয় করতে পারবেন হাজার হাজার টাকা।

এখানে কমেন্ট করার জন্য আপনাকে বিশেষ কিছু প্রয়োজন হবেনা ফ্রিতে একাউন্ট করতে দেওয়া হবে। ইমো একাউন্ট খুলেই আপনি ছবি আপলোড করে সেগুলো বিক্রি করতে পারবেন এবং কমিশন পেয়ে যাবেন। এখানে বিকৃত ছবি থেকে আপনাকে 33% কমিশন দেওয়া হবে।

3. BigStockPhoto.Com

অনলাইনে স্টক ইমেজ সাইটগুলোর মধ্যে টপ টেন এর প্রথম সারির একটি স্টক ইমেজ সাইট হল bigStock photo.com। এখানে আপনি সহজে একাউন্ট তৈরী করে ছবি বিক্রি করে আয় করতে পারেন।

এই সাইটে শুধুমাত্র ভালো মানের ছবিগুলো আপলোড করা হয়। আপনার ছবিগুলো আপলোড করার পর ছবিগুলো রিভিউর জন্য দেখানো হবে এবং ছবি যদি ঠিক থাকে তাহলে সেই ছবিটা আপনার সেই সাইটে শো করানো হবে। ছবিটি যদি অ্যাপ্রভে হয় তাহলে আপনি নিশ্চয়ই বুঝতে পারবেন যে আপনার ছবিগুলো অবশ্যই বিক্রি হবে।

আপনার ছবিগুলো সেই সাইট থেকে ডাউনলোড করা হবে তত বেশি টাকা পাবেন। এই সাইট থেকে আপনার ছবিগুলো যদি একবার ডাউনলোড করা হয় তাহলে আপনাকে 0.25 থেকে 30 ডলার পর্যন্ত দেওয়া হবে।

4. Alamy

এটি একটি অনলাইনে ছবি বা ভিডিও বেঁচা-কেনার জনপ্রিয় এবং বিশ্বস্ত সাইট। এই সাইটে প্রায় ২১০ মিলিয়ন এর বেশি ভালো ভালো ছবি এবং ভিডিও আছে।
আপনি এই সাইট থেকে আয় করার জন্য প্রথমে আপনাকে ফ্রিতে একটি কন্টিবিউটর অ্যাকাউন্ট মেইক করতে হবে। তারপর আপনার নিজের উঠানো ছবি গুলো সেখানে আপলোড করে নিতে হবে। এখানে আপনার ছবি গুলো রিভিউ করে দেখার জন্য তিন সপ্তাহ পর্যন্ত সময় নিয়ে থাকবে। রিভিউ শেষে সব কিছু ঠিক থাকলে আপনার ছবি বিক্রি করার জন্য সাইটে শো করিয়ে দেওয়া হবে।

এই সাইটে আপনার বিকৃত ছবি জন্য আপনাকে 40 থেকে 50 শতাংশ পর্যন্ত কমিশন দেওয়া হবে।

5. Depositphotos

এটি আরেকটি জনপ্রিয় এবং বিশ্বস্ত এইচটিএমএল সাইট যেখানে প্রায় 1000 মিলিয়ন এর বেশি রয়েছে। আপনি এখানে ছবির পাশাপাশি আরও অনেক কিছু যেমন Illustrations, Vector Art, Backgrounds, Editorial, News image এবং HD videos ও ভিডিও বিক্রি করে টাকা করতে পারেন। এখানে আপনার বিকৃত ছবি থেকে আপনাকে 34 থেকে 40 পার্সেন্ট পর্যন্ত কমিশন নিতে পারবেন। ভালো মানের ছবি হলে আপনাকে আরো ভালো মানের কমিশন দিয়ে পেমেন্ট করা হবে এবং কিছু গিফট করা হতে পারে। এখানে আপনার ভিডিওগুলো যতবেশি ডাউনলোড হবে আপনার কমিশন তত বেড়ে চলবে।

6. 123RF

বিশ্ব জনপ্রিয় স্টক ইমেজ এর কথা বললে অন্তত এই সাইটের নাম প্রথমে চলে আসবে। যেখানে প্রায় 300 মিলিয়ন এর মত কন্ট্রিবিউটর প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে। এখানে সব মিলিয়ে প্রায় 150 মিলিয়নের বেশি কণ্ঠ রয়েছে। এটি আপনার ছবি বিক্রি হওয়ার মাধ্যমে আপনি 30 থেকে 65 শতাংশ পর্যন্ত কমিশন পাবেন। অন্যান্য সাইটের তুলনায় একটু আগে রয়েছে। আপনার ইমেজ বা ফটো যতবার বিক্রি হবে আপনি তো সবারই কমিশন পেয়ে যাবেন এবং কমিশন আগের তুলনায় একটু বেশি হবে।

7.Dreamstime

ছবি বিক্রি করে টাকা আয় করার জন্য অনলাইনে ভাল একটি সাইট হল এই ওয়েবসাইটটি। এখানে আপনি প্রতিটি কমেন্ট করার জন্য আপনাকে 25% কমিশন দেওয়া হবে।

8. Photocase

সুইটি আর একটি বিশ্বস্ত এবং জনপ্রিয় সাইট যেখানে আপনি ছবি বিক্রি বিক্রি করে অনেক টাকা মাসে আয় করতে পারেন। এই সাইটে আমাদের অনেক বাংলাদেশী ভাইয়ের কাজ করে মাসে অনেক টাকা আয় করছে ঘরে বসেই। আমরা যদি ছবি তুলতে ভালো লাগে তাহলে আপনি অবশ্যই ছবি উঠি এই সাইটে আপলোড করতে পারেন। এখানে ছবির কোন রিভিউ করা হয় না যে কোন ধরনের ছবি আপলোড করা হয় এবং সাইটের শো করানো হয়। কিন্তু এখানে উপার্জনের আসা খুব কম। প্রতি দেওয়া হবে 10 থেকে 25% পর্যন্ত।

9. Getty images

এই সাইটটি একটি ছোট্ট সাইট হলেও বর্তমানে এই সাইটের জনপ্রিয়তা অনেক বেড়ে গেছে। এ সাইটটি দীর্ঘদিন যাবত তারা তাদের সঠিক পেমেন্ট এর মাধ্যমে সাইটের জনপ্রিয়তা অপেক্ষাকৃত আগের চেয়ে বেশি করে ফেলেছে। আপনি সেখানে আপনার ছবি গুলো বিক্রি করে অনেক টাকা আয় করতে পারেন কেননা এটি তাদের ইউজারদের সঠিক সময়ে পেমেন্ট দিয়ে থাকে।

এখানে আপনার বিকৃত ছবি থেকে আপনাকে দেওয়া হবে 20 পারসেন্ট কমিশন। আপনি যদি নতুন হন তাহলে আপনার জন্য যথেষ্ট হবে এই সাইটটি।

10. Istockphoto.com

আই স্টক হলো একটি জনপ্রিয় এবং বিশ্বস্ত সাইট যেখানে আপনারা ছবি বিক্রি করে মাসে আয় করতে পারবেন হাজার হাজার টাকা। এই সাইটে আপনার ছবি বিক্রি করার জন্য নির্দিষ্ট ভাবে কোন কমিশন দেয়া হয় না।
আপনি চাইলে এদের সাইট কিংবা এদের অফিশিয়াল এপস এ কাজ করতে পারবেন।

11. Stocksy.com

এটি একটি অল্পবয়সী সাইট অর্থাৎ এই এই সাইটের বয়স মাত্র 19 বছর। কিন্তু এই 9 বছরে একটি বিশেষ উপায় বিশ্বের একটি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। তাদের ভালো সবার জন্য এখানে ভালো মানের ক্লায়েন্ট পাওয়া যায়। এখানে ভালো মানের ছবি অবশ্যই আপলোড করতে হবে যদি আপনি ভালো মানের ইনকাম চান।

বিঃদ্রঃ আমাদের এই আর্টিকেলের উল্লেখিত সাঈদ এগুলো ছাড়াও আরো অনেক হয়েছে যেখানে ছবি কি করে করা যায়। আপনি গুগল এ সার্চ করে এরকম আরো অনেক পেয়ে যাবেন। তবে সেগুলো বিষয়ে আমাদের তেমন কোন ধারণা নেই তারা পেমেন্ট করবে কি না করবে কত পারসেন্ট কমিশন দেবে এই সকল বিষয় নিয়ে। কিন্তু আপনি যে সাইটে কাজ করেন না কেন অবশ্যই আগেই সেই সাইটের রিভিউ দেখে নেবে।

আপনি চাইলে আমাদের ওয়েবসাইট উল্লেখিত 11টি সাইট থেকে যে কোন একটি সাইটে কাজ করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

আমাদের শেষ কথাঃ

আমরা চাইলেই সকলেই অনলাইন থেকে অল্প পরিশ্রম করে টাকা আয় করতে পারি। আমাদের এই সাইটে আমরা আরো অনেকগুলো আর্টিকেল শেয়ার করেছি যেগুলো থেকে আমরা অনলাইন থেকে আয় করার সুযোগ পেয়ে যাব। আপনি চাইলে আমাদের পূর্বের লেখা আর্টিকেলগুলো পরে আপনার পছন্দ মত যে কোন একটি কাজ শুরু করতে পারেন যার জন্য আপনাকে বিশেষ কোনো দক্ষতার প্রয়োজন হবে না এবং কোন যন্ত্রের আপনার হাতে থাকায় স্মার্ট ফোন দিয়েই আপনি সেই কাজটি করতে পারবেন।

শুধু শুধু ছবি উঠিয়ে ফেসবুক কিংবা ইনস্টাগ্রামে আপলোড করে সময় নষ্ট না করে কিছু ছবি বিক্রি করে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারেন। টাকা ইনকাম করার সবচেয়ে সহজ মাধ্যম হলো অনলাইনে ছবি বিক্রি করে টাকা আয় করা।

বন্ধুরা আমাদের এই আর্টিকেলটি যদি আপনাদের ভালো লাগে তবে আপনাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। এবং তাদেরকে ছবি বিক্রি করে টাকা আয় করার বিষয়ে জানাবেন।

সকলে সুস্থ থাকুন ভালো থাকুন ধন্যবাদ।

To Write Your Thoughts Please Login First

Login

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় । গুগল এডসেন্স এর নিয়ম

গুগল এডসেন্স কে সোনার হরিণ ও বলা হয়। কেননা এটা খুবই মূল্যবান একটি এডভার্টিসমেন্ট একাউটন্ট। আজকে আমি আলোচনা করব কিভাবে গুগল এডসেন্স পাওয়া যায় ও...

ফেসবুক থেকে কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায়- জানুন বিস্তারিত!!

সবচেয়ে সেরা সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম এর কথা জিজ্ঞেস করলে আপনার কাছে তার উত্তর কি হবে? নিশ্চয় ফেসবুক তাই না? হ্যাঁ, আপনার মতো ৫ বিলিয়ন মানুষের...

অনলাইন ইনকামের গোপন রহস্য- জিনে নিন এবং ধুমসে অনলাইন আয় করুন

অনলাইন ইনকাম বিষয়টি এখন একটি ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেকেই চাকরি এবং পড়ালেখার পাশাপাশি অনলাইন থেকে ভালো পরিমাণে ইনকাম করছেন। আবার অনেকেই এই পেশা নতুন করে...

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি? Graphics Design করে কিভাবে আয় করবেন ?

আমরা মুভি কিংবা অ্যানিমেশন সবাই দেখে থাকি| যে কোনো ক্ষেত্রে এরকম কিছু বিষয় থাকে যেখানে গ্রাফিক্স ডিজাইন উপস্থিত। কিন্তু আমরা সেগুলো ব্যবহার করে থাকলেও ভাবি না মূল...