ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার গাইডলাইন ২০২২

অনলাইনে ইনকাম এর ভেতরে ইউটিউব থেকে আয় ট্রেন্ডিং এ রূপান্তরিত হয়েছে। ইউটিউব থেকে খুব দ্রুত সময়ে অনলাইনে টাকা আয় করা সম্ভব। সেই সাথে একটা ইউটিউব চ্যানেল থেকে স্মার্ট ইনকাম/ভালো পরিমাণ অনলাইন ইনকাম করা সম্ভব। আমাদের বাংলাদেশের অনেকেই এখন ইউটিউব চ্যানেল থেকে প্রতি মাসে আয় করছে লক্ষ লক্ষ টাকা।

বর্তমানে ইউটিউব ব্যবহার করে আমাদের দেশের অনেক লোকই দিনদিন কোটিপতি হয়ে যাচ্ছে। চাইলে আপনিও একটি ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে নিজের ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারেন।

আজকের এই আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করব আপনি ইউটিউব থেকে কিভাবে টাকা আয় করবেন। ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার সহজ সঠিক মাধ্যমগুলো আজ আপনাদের সামনে তুলে ধরব। অনলাইনে আপনি আপনার ক্যারিয়ার গড়ার জন্য ইউটিউব কে বেছে নিতে পারেন। শুনতে পারেন নিচে আমরা দেখাবো ইউটিউব থেকে কিভাবে সহজে ইনকাম করা যায় আশাকরি step-by-step আপনি পুরো আর্টিকেলটি পড়বেন।

কেন ইউটিউবে আয় করবেন? (Why Earn From YouTube?)

আপনি যদি মনে করেন আপনার ইনকাম করা দরকার তাহলে এটি হতে পারে আপনার জন্য সহজ একটি ইনকামের মাধ্যম। বর্তমানে ইউটিউব ইনকমে অনেক সুবিধা রয়েছে যেহেতু এটি একটি অনলাইন সার্ভিস বিয়েতে অনেক অসুবিধা রয়েছে যা অফ্লাইন গ্রুপে নেই। বিভিন্ন ধরনের সুবিধা নিচে দেওয়া হলঃ

  1. একটি প্যাসিভ ইনকাম সিস্টেম হওয়ায় এখানে ইনকামের কোন মাত্রা নেই। আপনি সেই পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন আপনার ইউটিউব চ্যানেলের যত পরিমান ভিজিটর আসবে। আপনার ইনকাম এর প্রথম সপ্নার ইউটিউব এর ভিডিও এবং ভিউয়ার্স।
  2. ইউটিউব চ্যানেল করার জন্য অপেক্ষা এমন কিছু প্রয়োজন হবে না আপনি ফ্রিতে একটি যুক্তি আমি করতে পারবেন। এর জন্য আপনার কোন প্রকার খরচ করতে হবে না। শুধুমাত্র একটি জিমেইল একাউন্টের মাধ্যমে খুব সহজেই একটি ইউটিউব চ্যানেল করে দিতে পারবেন।
  3. এডুকেয়ার পড়াশোনার জন্য কোন কোর্স এর প্রয়োজন হয় না খুব সহজেই আপনি ইউটিউব চ্যানেল পরিচালনা করতে পারবেন ।এর জন্য প্রয়োজন নেই কোন ডেভলপিং বা প্রোগ্রামিং ভাষা শেখার।। এটি পরিচালনার জন্য এসবের কোনো কিছুর প্রয়োজন হয় না।
  4. ডিলিট করতে পারবেন এখানে আপনি আপনার বস। এখানে আপনাকে কেউ কিছু বলার, এবং আপনার ইনকামে কেউ হস্তক্ষেপ করতে পারবে না সম্পূর্ণ ইনকাম শুধু আপনার।
  5. আপনার ইউটিউব চ্যানেল পরিচালনার জন্য আপনাকে কোন প্রকার নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট টপিক অনুযায়ী কাজ করতে হবে না। আপনি আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী কাজ করতে পারবেন।
  6. অনলাইনে যেকোন কাজের জন্য বিশেষ সুবিধা থাকে যা আপনি উপরে বুঝতে পেরেছেন।

ইউটিউবে আয় করতে কি কি লাগে?

ইউটিউব থেকে আয় করতে হলে আপনাকে তেমন কোনো শর্ত বা পরিশ্রমের তেমন প্রয়োজন নেই। আপনি আপনার ধৈর্য কে কাজে লাগিয়ে ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। প্রথমত আপনার একটু দেরী হলোও আপনার ইনকাম যখন শুরু হবে এরপর অনবরত ইনকাম চলতেই থাকবে। তো চলুন জানা যাক ইউটিউব থেকে ইনকাম করার জন্য কি কি প্রয়োজন।

1.একটি ইউটিউব চ্যানেল

ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করার পর আপনাকে এখন ভালো মানের ভিডিও আপলোড করতে হবে। ভিডিও আপলোড করার আগে আপনার চ্যানেল টি সুন্দর করে কাস্টমাইজ করতে হবে যা দেখতে প্রফেশনাল মনে হয়।

কেননা এই ধরনের প্রফেশনাল চ্যানেল দর্শকদের সহজেই আকর্ষিত করে যার ফলে আপনি আপনার চ্যানেলের অনেক পরিমাণে ভিজিটর পাবেন এবং কিছুদিনের মাঝেই জনপ্রিয় হয়ে উঠবেন। প্রফেশনাল ইউটিউব চ্যানেল আপনার ইনকামে সফলতাকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য বিশেষ ভুমিকা রাখে।

2.কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করবেন? (Create YouTube Channel)

  1. অনে সহজেই আপনি একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে পারবেন।এর জন্য আপনাকে ইউটিউব ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার জিমেইল একাউন্ট দিয়ে লগইন করে ডান পাশে থাকা জিমেইল আইকনে ক্লিক করুন।
  2. ক্লিক করার পর আপনি এই Create a channel লেখাটিতে ক্লিক করুন, এবং আপনার চ্যানেলর নাম বসিয়ে দিন।
  3. এরপর আবার Create a channel অপশনে ক্লিক করুন, এখন আপনার সমনে প্রর্দশিত চ্যানেলটিই আপনার নিজের ইউটিউব চ্যানেল।
  4. এখন আপনার  প্রধান কাজ হলো আপনার ইউটিউব চ্যানেলাট ভেরিফাই কর নেওয়া। চ্যানেল ভেরিফাই করার জন্য আপনাকে ইউটিউব চ্যানেল ড্যাশবোর্ডে যেতে হবে।ড্যাশবোর্ডে যাৗয়ার পর সেখানে থাকা ডান পাশের Verify লেখাতে ক্লিক করুন । চ্যানেল  ভেরিফাই করার জন্য আপনার একটি মোবাইল নাম্বারের প্রয়োজন হবে। আপনার ফোন নাম্বার দিয়ে আপনি সহজেই ইউটিউব চ্যানেল ভেরিফাই করতে পারবেন।

3.ভিডিও (Upload YouTube Video)

ইউটিউব হলো একটি ভিডিও শেয়ারিং প্লাটর্ফম।তাই ইউটিউব থেকে টাকা ইনকামতে করতে চাইলে অবশ্যই আপনার ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও আপলোড করতে হবে।আপনার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা ভিডিওতে গুগল এড ব্যবহার করে, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বা অন্যান্য অনলাইন ইনকাম সাইট ব্যবহার করে  প্রতি মাসে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

এর জন্য আপনাকে অবশ্যই কোয়ালিটি সম্পন্ন ভিডিও বানিয়ে আপনার ইউটিউবে আপলোড করতে হবে।কোয়ালিটি সম্পনন ভিডিও ছারা আপনি ইউটিউবে টিকতে পারবেন না।আপনাকে অবশ্যই ভিডিও এর কোয়ালিটি এবং টপিক মেইনটেন করে ভিডিও আপলোড করতে হবে।আপনার ইনকামের চিন্তা থাকলে আপনি অবশ্যই আপনার ভিডিও এর কোঢালিটি এর ব্যাপারে সচেতন থাকবেন।

4.ইউটিউবের ভিডিও তৈরি করার ৭টি টপিকঃ

এই আর্টিকেলে ইউটিউবে ভিডিও বানানোর কিছু অসাধারণ টপিক আমি শেয়ার করব। আপনি যদি আমার এই টপিক ব্যবহার করে ভিডিও  তৈরি করেন তবে ইউটিউব থেকে ভালো পরিমান ভিজিটর্স এবং ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন সহযেই। কেননা এই বিষয়গুলোর প্রতি মানুষের আগ্রহ অনেক বেশি থাকে সবসময়।

মোবাইল রিভিউ

বর্তমানে অনলাইনের যোগে আমরা সকলেই যে কোন কাজেই অনরাইন ব্যাবহার করে থাকি।যেমন আমরা কোন মোবাইল ফোন কেনার আগে অনলাইনে সার্চ করে দেখি সেই মোবাইল সম্পর্কে সকল তথ্য জানার জন্য। বাংলাদেশসহ প্রায় সকল দেশেই মোবাইল রিভিউ এর জন্য তৈরি ভিডিওগুলো ভ্যাপক পরিমাণে ভিউস পেয়ে থাকে। 

তাই আপনি চাইলে মোবাইল রিভিউ নিয়ে একটি ইউটিউব ভিডিও তৈরি করতে পারেন। মোবাইল রিভিউ ভিডিও থেকে আপনি দুই ভাবে ইনকাম করতে পারবেন।এই দুটি অপশন হলো গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে এবং এফিলিয়েট মার্কেটিং করে।

আপনি যদি ইউটিউব চ্যানেল থেকে কম পরিশ্রমে অনেক টাকা আয় করার ইচ্ছা থাকে তাহলে আপনি মোবাইল রিভিউ বিষয়টি বেছে নিতে পারেন ।

টেকনোলজি

এখনকার সময়কে বলা যায় টেকনোলজির সময়। টেকনোলজির ভিডিও অনলাইনে অনেক চাহিদা রয়েছে। সবথেকে মজার ব্যাপার হলো টেকনোলজির ইউটিউব ভিডিও গুলিতে গুগল এডসেন্সের হাই CPC এর এড দেখানো হয়।যা আপনাকে অল্প সময়ে অনেক টাকা ইনকাম করার সুযোগ করে দেয়।

টেকনোলজি একটি জনপ্রিয় বিষয় যা তাই টেকনোলজি ভিডিও আপনার ইউটিউব চ্যানেল দ্রুত সময়ে জনপ্রিয় হওয়ার সহায্য করবে। একটি ইউটিউব চ্যানেল যদি একবার জনপ্রিয়তা পেয়ে যায় তাহলে আর ইনকাম বন্ধ হওয়ার কোন সুযুগ থাকে না।

অনলাইন ইনকাম

বর্তমান সময়ে টাকা ই্নকাম করার সহজ মাধ্যম হলো অনলাইনে ইনকাম করা। আপনি ইউটিউবে একটি অনলা্িন ইনকাম বিষয়ে সার্চ করে দেখতে পারেন অনলাইন সম্পর্কিত ভিডিওতে প্রচুর পরিমাণে ভিউজ এবং কমেন্ট হয়ে থাকে। কেননা বর্তমান সময়ে আমরা অনলাইনে ইনকাম করার জন্য বেশি আগ্রহি থাকি।

আপনার যদি অনলাইনে ইনকাম সম্পর্কে বিশেষ অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে আপনি চা্ইলে আপনার ইউটিউব চ্যানেল অনলাইন ইনকাম সম্পর্কিত ভিডিও তৈরি করে ভালো পরিমাণ টাকা আয় করতে পারবেন।

ব্লগিং টিপস্

অনলাইন ইনকামের একটি সহয মাধ্যম হলো ব্লগিং বা লোখালেখি করে আয়। অনলাইন ইনকাম করার জন্য স্মার্ট মাধ্যম হচ্ছে ব্লগিং। ব্লগিং এর চাহিদা প্রতিটি মানুষকে বর্তমানে অনেক আর্কশিত করছে। আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেল ব্লগিং সম্পর্কিত ভিডিও তৈরি করে খুব দ্রুত সময়ে সফলতা পেতে পারেন।

অ্যাপ রিভিউ

গুগোল এবং ইউটিউব সার্চ ইঞ্জিনে ব্যপক পরিমাণে অ্যাপ রিভিউ এর ভিডিও সার্চ করা হয়। আমারা সকলেই মোবাইলে ফোনে কোন অ্যাপস ইনস্টল করার আগে ইউটিউবে সার্চ করে দেখি এই অ্যাপসের রিভিউ কেমন।

বর্তমান প্রায় সকলেই গুগোল এবং ইউটিউবে অ্যাপস এর রিভিউ ভিডিও দেখে থাকে। তাহলে তো লাকি সময় আপনি চাইলে অ্যাপস রিভিউ ভিডিও নিয়ে একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে পারেন। এবং নিয়মিত কোয়ালিটি সম্পন্ন ভিডিও দিয়ে অল্প সময়ে আপনার চ্যানেল থেকে ভালো কিছু করতে পারবেন।

ফুড ভিডিও

আপনি যদি রান্নায় পারদর্শী হয়ে থাকেন তাবে আপনি ইউটিউবে রান্না সম্পর্কিত বিস্তারিত বিষয় নিয়ে একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে পারেন। এবং সেখানে আপনার রান্না করার অভিজ্ঞতা ভিডিওতে শেয়ার করতে পারেন। রান্নার ভিডিওগুলো ইউটিউবে প্রচুর পরিমাণে দেখা হয়ে থাকে হয়।

আপনি চাইলে রাস্তার তৈরি বিভিন্ন খাবার এর ভিডিও করে ইউটিউবে দিতে পারেন। এই ভিডিওগুলো প্রচুর পরিমাণে ইউটিউবে দেখা হয়ে থাকে। রাস্তার খাবারের ভিডিও করেও কোটি কোটি টাকা ইনকাম করতে পারেন আপনি।

5.ইউটিউব মনিটাইজেশন (YouTube Monetization)

ভিডিওতে গুগল এডসেন্স ব্যবহার করে টাকা ইনকাম করাই হচ্ছে ইউটিউব মনিটাইজেশন।বর্তমানে ইউটিউব মনিটাইজেশন আগের তুলনায় একটু কঠিন হয়ে গেছে । ইউটিউব মনিটাইজেশন নেওয়ার জন্য আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ছোট ছোট কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে।যেমনঃ

  • আপনার ইউটিউব চ্যানেলে বিগত এক বছরে 1,000 সাবস্ক্রাইবার হতে হবে।
  • আপনার ইউটিউব চ্যানেলের বিগত এক বছরে সকল ভিডিও মিলে 4000 ঘন্টা ওয়াচ টাইম হতে হবে।
  • আপনার ইউটিউব এর নিয়ম নীতি অনুযায়ী ইউটিউব মনিটাইজেশন পাওয়ার যোগ্যতা থাকতে হবে।

6.কিভাবে মনিটাইজেশনের জন্য আবেদন করবেন? (How To Apply For YouTube Monetization)

আপনি যদি উপরের দেওয়া শর্তগুলো পূরণ করেন তা হলেই আপনার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন অপশনটি আপনি দেখতে পাবেন। যখন আপনার চ্যানেল মনিটাইজেশন অপশন চালো হবে তখনই আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। এর আগে আপনি ইউটিউব চ্যানেলের জন্য মনিটাইজেশন জন্য আবেদন করা সম্ভব না।

  1. চ্যানেলের মনিটাইজেশন অপশন চালু করার জন্য চ্যানেল আইকনে ক্লিক করুন।
  2. এরপর আপনি Creator Studio তে ক্লিক করুন।
  3. এরপর আপনি Channel এ ক্লিক করুন।
  4. তারপর Monetarization বাটনে এ ক্লিক করুন।
  5. এরপর আপনি মনিটাইজেশন পেজে চারটি অপশন দেখতে পাবেন। এ চারটি অপশন ভালো করে পূরণ করে আপনার চ্যানেলের জন্য মনিটাইজেশন এর আবেদন করে ফেলুন।
  6. দুই নাম্বার অপশনে আপনার চ্যানেলের জন্য আপনাকে একটি এডসেন্স অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে।

আপনার চ্যানেলের ভিডিওতে অ্যাডসেন্স থেকে এড দেখানোর মাধ্যমে আপনার ইনকাম হবে। গুগল অ্যাডসেন্স কমপক্ষে  ১০০ ডলার হলে তারপর পেমেন্ট করে থাকে।

ইউটিউবের টাকা কিভাবে হাতে পাবেন? (How To Get YouTube Payment)

 এখন কথা বলবো কিভাবে ইউটিউব থেকে আয় করা টাকা আপনি হাতে পাবেন?

আপনি যদি কখনো গুগল এডসেন্স ব্যবহার করে ইউটিউব থেকে আয় করেন, তবে আপনি অনেক সহজে গুগোল অ্যাডসেন্সে ব্যাংক একাউন্ট এড একটা অপশন আছে, সেখানে আপনার ব্যক্তিগত ব্যাংক অ্যাকাউন্ট যোগ করে সহজেই গুগল অ্যাডসেন্সের আয় করা টাকা তুলতে পারবেন।

গুগল অ্যাডসেন্সে সাধারণ প্রতি মাসের ২১ বা ২২ তারিখে ব্যাংকে টাকা পাঠিয়ে থাকে। কিন্তু এই টাকা আপনার হাতে আসতে ০২ থেকে ০৭ দিন সময় নিতে পারে। এটা ব্যাংক অনুযায়ী হতে পারে। কিছু ব্যাংক আছে যারা দ্রুত টাকা দেয় আবার কিছু ব্যাংক আছে যারা টাকা দিতে একটু দেরি করে থাকে।

ইউটিউব চ্যানেল থেকে আয় করার উপায় (How To Earn From YouTube Channel)

ইউটিউব চ্যানেল থেকে টাকা ইনকাম করা অনেকগুলো উপায় রয়েছে যেগুলো ব্যবহার করে আপনি সহজেই আপনার ইউটিউব চ্যানেল থেকে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তো আমরা এখন কিছু জনপ্রিয় উপায় নিয়ে আলোচনা করবো । 

1.এফিলিয়েট মার্কেটিং

অনেকেই আচেন যারা ভেবে থাকেন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শুধুমাত্র ওয়েবসাইটের মাধ্যমেই হয়ে থাকে। বর্তমানে ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আপনি অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। অনেকে শুধুমাত্র ইউটিউব চ্যানেল এর মাধ্যমে এফিলিয়েট মার্কেটিং  করে থাকে। এবং তারা এই কাজ করে অনলাইন থেকে ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করছে ইউটিউব দিয়ে এফিলিয়েট মার্কেটিং করার  মাধ্যমে।

আপনিও চাইলে আপনার ইউটিউব চ্যানেল থেকে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে অনলাইনে আয় করতে পারেন।

2.নিজের প্রোডাক্ট বিক্রি

আপনার নিজের ইউটিউব চ্যানেলে আপনার নিজস্ব প্রোডাক্ট বিক্রি করে ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করতে পারেন। বাংলাদেশে এমন বেশকয়েকটি ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে যারা শুধুমাত্র নিজস্ব প্রোডাক্ট বিক্রি করার জন্য ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করেছে।

আপনিও নিজস্ব প্রোডাক্ট বিক্রির জন্য একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে পারেন এবং আপনার নিজস্ব প্রোডাক্ট বিক্রি করে অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

3.ইউটিউব চ্যানেল বিক্রি করে

ইউটিউব চ্যানেল বিক্রি করার মধ্যমেও আপনি অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। এ কাজের জন্য অবশ্যই আপনার ইউটিউব চ্যানেলটিতে মনিটাইজেশন থাকতে হবে। সাধারণত মনিটাইজেশন ইউটিউব চ্যানেল গুলো বিক্রি হয়ে থাকে।

কিছু বিষয় রয়েছে যেগুলো বিষয়ে ইউটিউবে ভিডিও তৈরি করুন খুব অল্প সময়ে ইউটিউব মনিটাইজেশন পাওয়া যায়। আপনি এরকম বিষয় নিয়ে ইউটিউবে ভিডিও তৈরি করে ইউটিউব চ্যানেল মনিটাইজেশন নিয়ে ইউটিউব চ্যানেল বিক্রি করে অনলাইনে টাকা আয় করতে পারেন।

আমার পরিচিত অনেকেই এই কাজটি করে। এবং তারা ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করছে।

ইউটিউব চ্যানেল থেকে কত টাকা আয় করা যায়?

 

 ইউটিউব চ্যানেল থেকে আপনি কত টাকা আয় করবেন সেটা নির্দিষ্ট করে বলা যায় না। অনেকেই ইউটিউব চ্যানেল ব্যবহার করে অল্প দিনেই কোটিপতি হয়ে গেছে। বাংলাদেশের রয়েছে এরকম অনেক ব্যক্তি। আপনি চাইলে আপনার নিজের ক্যারিয়ার ইউটিউব এর মাধ্যমে করে তুলতে পারেন।

আপনার ইউটিউব চ্যানেল যদি ভালো কোয়ালিটি সম্পন্ন ভিডিও দেন তাহলে তার থেকে যদি আপনি প্রতিদিন 1000 ভিউ পান তাহলে আপনি 0.50৳ পাবেন। এখানে আরেকটি কথা হয়েছে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের বৃহস্পতির যদি অন্য দেশের যেমনঃ আমেরিকা লন্ডন কানাডা সিঙ্গাপুর মালয়েশিয়া থেকে হয়ে থাকে তাহলে আপনি তাদের থেকে বেশি সিপিসি পাবেন।

আর এর জন্য আপনাকে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করতে হবে। যদি নিয়মিত ভালো কোয়ালিটি সম্পন্ন ভিডিও আপলোড করেন তাহলে আপনার চেনেলের দিন দিন বেশি জনপ্রিয়তা লাভ করবে এবং আপনার ইনকাম বেড়ে যাবে কয়েক গুণ। আর এভাবেই আপনি ইউটিউব ব্যবহার করে ইনকাম করতে পারেন সহজেই।

আমাদের শেষ কথাঃ

আপনি প্রতিনিয়ত আমাদের এই সাইটে আপনার প্রয়োজনীয় সকল তথ্যের সমাধান পেয়ে যাবেন। আশাকরি উপরের লেখা ইউটিউব থেকে ইনকাম এর আর্টিকেলটি আপনার ভালো লেগেছে। আপনি যদি নিয়মিত ভিডিও দিয়ে আপনার গ্রাহকের চাহিদা পূরণ করতে পারেন তাহলে আপনার ইউটিউবে টাকা ইনকাম কেউ আটকাতে পারবেনা। সফলতা পেতে আপনাকে অবশ্যই সম্পন্ন ভিডিও আপলোড করতে হবে।

আমাদের আর্টিকেলটি আপনার ভালো লেগেছে আর যদি আপনার কাছে ভাল লেগে থাকে আর বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

ধন্যবাদ।

To Write Your Thoughts Please Login First

Login

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় । গুগল এডসেন্স এর নিয়ম

গুগল এডসেন্স কে সোনার হরিণ ও বলা হয়। কেননা এটা খুবই মূল্যবান একটি এডভার্টিসমেন্ট একাউটন্ট। আজকে আমি আলোচনা করব কিভাবে গুগল এডসেন্স পাওয়া যায় ও...

ফেসবুক থেকে কিভাবে অনলাইনে আয় করা যায়- জানুন বিস্তারিত!!

সবচেয়ে সেরা সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম এর কথা জিজ্ঞেস করলে আপনার কাছে তার উত্তর কি হবে? নিশ্চয় ফেসবুক তাই না? হ্যাঁ, আপনার মতো ৫ বিলিয়ন মানুষের...

অনলাইন ইনকামের গোপন রহস্য- জিনে নিন এবং ধুমসে অনলাইন আয় করুন

অনলাইন ইনকাম বিষয়টি এখন একটি ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেকেই চাকরি এবং পড়ালেখার পাশাপাশি অনলাইন থেকে ভালো পরিমাণে ইনকাম করছেন। আবার অনেকেই এই পেশা নতুন করে...

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি? Graphics Design করে কিভাবে আয় করবেন ?

আমরা মুভি কিংবা অ্যানিমেশন সবাই দেখে থাকি| যে কোনো ক্ষেত্রে এরকম কিছু বিষয় থাকে যেখানে গ্রাফিক্স ডিজাইন উপস্থিত। কিন্তু আমরা সেগুলো ব্যবহার করে থাকলেও ভাবি না মূল...